যেসব ছেলেদের দেখলেই মেয়েরা ‘ক্রাশ’ খায়

ইতিহাসের বিভিন্ন নিদর্শনে পুরুষকে সুদর্শন ও সুঠাম দেহের দেখানো হয়। গল্প, কবিতা বা সাহিত্যে একজন পুরুষের দৃষ্টিতে নারীর সৌন্দর্যের বর্ণনা নানাভাবে উঠে এসেছে। কিন্তু এর উল্টোটা অর্থাৎ নারীর চোখে পুরুষের কোন বিষয়গুলো আকর্ষণীয় সেই ব্যাখ্যা এসেছে খুবই কম। তার মানে এই নয় যে, পুরুষকে বেছে নেয়ার ক্ষেত্রে নারীদের কোন পছন্দ-অপছন্দ নেই। সেটা অবশ্যই একেকজনের ক্ষেত্রে একেকরকম।

অনেক মেয়ের কাছে পুরুষের সৌন্দর্য মানেই তার পরিচ্ছন্নতা, সেটা হোক শরীরের বা মনের। আবার অনেকের কাছেই এই সৌন্দর্য্য আবার কিছুটা এলোমেলো স্বাভারে ছেলের দিকে চলে যায়।

পুরুষের প্রতি নারীর এমন পছন্দের পরিসর আগের চাইতে অনেক বেড়েছে বলে মনে করেন অনেকেই। এছাড়া একটি ছেলে লম্বা, খাটো, কালো বা ফর্সা হতে পারে কিন্তু সে তার শরীরের ফিটনেস নিয়ে যদি যত্নশীল হয় এবং ফ্যাশনেবলভাবে নিজেকে উপস্থাপন করে তাহলে তার দিকেও মেয়েদের দুর্বলতা কাজ করে।

এছাড়া পুরুষদের কণ্ঠও নারীদের পছন্দের উপর অনেক প্রভাব ফেলে। ভারী কণ্ঠের পুরুষের প্রতি ঘায়েল হয় নারীরা। এছাড়া গায়ের রং তেমন গুরুত্ব না পেলেও লম্বা গড়ন সেইসঙ্গে ক্যারিয়ারে সুপ্রতিষ্ঠিত পুরুষের প্রতিও নারীরা বিশেষভাবে আকৃষ্ট হয়।

এদিকে, যেসব পুরুষের পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা, পোশাকি রুচিশীলতা, মার্জিত আচরণ এবং কথাবার্তায় রসবোধ থাকে তাদের প্রতিও মেয়েদের ফিদা হতে খুব একটা সময় লাগে না বলেও আমেরিকার ইনস্টিটিউট অব অ্যাডভান্স স্ট্যাডির এক গবেষণায় উঠে এসেছে।

এছাড়া, পুরুষের প্রতি নারীদের এই দৃষ্টিভঙ্গির বৈচিত্র্য, বয়স-ভেদে বদলায়। যার কোনো আদর্শ মাপকাঠি নেই।